SylhetNews24.com

সিলেটে একদিনেই সনাক্ত শতাধিক, টিকা নেয়ার পরও আক্রান্ত

বিশেষ প্রতিনিধি

সিলেট নিউজ ২৪

প্রকাশিত : ১২:১২ এএম, ৩১ মার্চ ২০২১ বুধবার

ভ্যাকসিন নিয়েও  ৩০ মার্চ করোনায় আক্রান্ত সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী

ভ্যাকসিন নিয়েও ৩০ মার্চ করোনায় আক্রান্ত সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী

সিলেটেও যুক্তরাজ্যের করোনার নতুন স্ট্রেইন শনাক্ত হয়েছে। নতুন স্ট্রেইন শনাক্তের সংবাদ প্রকাশের পর থেকেই সিলেটজুড়ে আতঙ্ক ও শঙ্কা বিরাজ করছে। 

এ শঙ্কার মধ্যে সিলেটজুড়ে আবারও লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগজুড়ে আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা শতাধিক ছাড়িয়েছে, যা চলতি বছরের সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা।

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কোনো মৃত্যু নেই। তবে শনাক্ত হয়েছেন ১০১ জন। বিপরীতে সুস্থ হয়েছেন ৩২ জন।

নতুন শনাক্তদের ৫৫ জনই সিলেট জেলার বাসিন্দা। এছাড়া মৌলভীবাজার জেলার ৩০ জন, সুনামগঞ্জ জেলার ৩ জন ও হবিগঞ্জ জেলার ৯ জন রয়েছেন। 

করোনা টিকা নেয়ার পরও আক্রান্ত হয়েছেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুল মজিদ খান, সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী।

সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক ইকবাল সিদ্দিকী  গত তিন দিন থেকে তিনি অসুস্হতা বোধ করছিলেন। ধারণা করছিলেন ইউরিন ইনফেশনের কারনে জ্বর ও ব্যাথা হচ্ছে। কিন্তু মঙ্গলবার ৩০ মার্চ দুপুরে র্যাপিড করোনা টেস্ট করে স্বস্ত্রীক তিনি করোনা পজেটিভ বলে নিশ্চিত হন। পরে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সাপোর্ট দেয়ার জন্য শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  উল্লেখ্য, ইকবাল সিদ্দিকী স্বস্ত্রীক গত এক মাস আগে ওসমানী হাসপাতালে প্রথম ডোজ করোনা ভ্যাকসিন গ্রহন করেছেন। পরিবারের পক্ষ থেকে তারঁ পুত্র ইন্টার্ন চিকিৎসক সাকিব পিতামাতার দ্রত সুস্হতার জন্য দোয়া কামনা করেছেন।

এছাড়া, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের ভাই পল্লী শিশু ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের (পিএসএফ) চেয়ারম্যান এ এস এ মুয়িয সুজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত দুইদিন যাবত তিনি করোনাক্রান্ত হয়ে ঢাকার গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৭ হাজার ৩৩০ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় সর্বোচ্চ ১০ হাজার ৬৭০ জন, সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৫৮২ জন, হবিগঞ্জে ২ হাজার ৫০ জন ও মৌলভীবাজারে ২ হাজার ২৮ জন রয়েছেন।

সিলেট বিভাগে এ পর্যন্ত ২৮৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে সিলেট জেলায় সর্বোচ্চ ২১৮ জন, সুনামগঞ্জে ২৬ জন, হবিগঞ্জে ১৬ জন এবং মৌলভীবাজার জেলায় ২৩ জন রয়েছেন।

বিভাগে এ পর্যন্ত ১৬ হাজার ৯৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়েছেন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ৯ হাজার ৯৪৮ জন, সুনামগঞ্জের ২ হাজার ৫৩২ জন, হবিগঞ্জের ১ হাজার ৬৯৫ জন এবং মৌলভীবাজার জেলার ১ হাজার ৯২৩ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১০২ জন রোগী সিলেট জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ৯৪ জন, সুনামগঞ্জের হাসপাতালে ২ জন, হবিগঞ্জের হাসপাতালে ১ জন এবং মৌলভীবাজারের হাসপাতালে ৫ জন  চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. সুলতানা রাজিয়া বলেন, সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়নি। নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১০১ জন এবং সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ৩২ জন।