SylhetNews24.com

৪০ লাখ ঘুষ: দুদক পরিচালক এনামুল বাসির সাময়িক বরখাস্ত

অনলাইন ডেস্ক

সিলেট নিউজ ২৪

প্রকাশিত : ১২:১১ এএম, ১১ জুন ২০১৯ মঙ্গলবার

অবৈধভাবে  তথ্য পাচার ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসিরকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে কমিশন। সোমবার বিকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দুদকের  উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য। 

তিনি জানান, এনামুল বাসিরের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে তথ্য পাচার ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় সাময়িক বরখাস্ত করেছে কমিশন। 

দুদক সূত্রে জানা যায়, আলোচিত- সামলোচিত পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমান মিজানের অবৈধ সম্পদের তদন্ত করতে গিয়ে তার কাছে ঘুষ দাবি করেন দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির। কয়েক দফায় তার কাছ থেকে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দুদক। 

সোমবার বিকেলে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান  ইকবাল মাহমুদ বলেন, অনুসন্ধানের তথ্য অভিযুক্ত ব্যক্তির কাছে প্রকাশ করায় চাকরির শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হল। তার বিরুদ্ধে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগের বিষয়ে আলাদা একটি বিভাগীয় তদন্ত করা হবে।

তিনি আরও বলেন, এনামুল বাসিরের কারণে দুদক বিব্রত নয়। ব্যক্তির দায় প্রতিষ্ঠানের নয়। দুদকের ৮৭৪ জন কর্মীর সততার নিশ্চয়তা কমিশন দিতে পারে না।

এর প্রশ্নের জবাবের দুদক চেয়ারম্যান আরও বলেন, এনামুল বাসিরের সঙ্গে ডিআইজি মিজানুর রহমানের কথোপকথন নিশ্চিত হতে অডিও রেকর্ড ফরেনসিক পরীক্ষা করতে হবে। তাছাড়া মিজানুর ঘুষ দিয়েছেন প্রমাণিত হলে দুদক মামলা করবে।

উল্লেখ্য, ডিআইজি মিজানুর রহমানের অবৈধ সম্পদের তদন্ত করছিল দুদক। তদন্ত করতে গিয়ে দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন মিজানুর রহমান।