ঢাকা, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
২৫ জনকে আসামি করে আবরার হত্যার চার্জশিট:অভিযুক্তরা উচ্ছৃঙ্খল ছিল

বনকলাপাড়ার কলোনিতে জিম্মি করে তরুণীকে গণধর্ষণ,আটক ৩ ধর্ষক

বিশেষ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৯  

গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ৩ ধর্ষক

গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ৩ ধর্ষক

সিলেট মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানাধীন বনকলাপাড়ার নূরানী আবাসিক এলাকার একটি কলোনিতে তরুণীকে (২৬) গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।তিনি তার ভাগ্নির বাসায় বেড়াতে এসেছিলেন। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে ৩ ধর্ষককে।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ বিষয়টি জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা।

ধর্ষিতা ওই তরুণীর বাড়ি সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার চৌধুরী বাজার এলাকায়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- নগরীর জালালাবাদ থানাধীন মইয়ারচরের সফর আলীর ছেলে নিজাম উদ্দিন (২৪), বনকলাপাড়ার ১০৮/২নং বাসার মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে আনোয়ার হোসেন জলিল (৩৫) ও হবিগঞ্জের আজমিরিগঞ্জ উপজেলার জলশোকা গ্রামের মৃত তমিল খানের ছেলে দুদু মিয়া (২৮)। নিজাম বর্তমানে বনকলাপাড়ার ১৩২/২নং বাসায় এবং দুদু একই এলাকার ১১২নং বাসায় বসবাস করছিল।

পুলিশ জানায়, গত রবিবার বিকালে সিলেট নগরীর বনকলাপাড়াস্থ নিজের ভাগ্নির বাসায় বেড়াতে আসেন ওই তরুণী। তিনি ওইদিন ভাগ্নির বাসায় থেকে যান। রাতে ভাগ্নি ও তার স্বামীর সাথে একই ঘরে ঘুমান ওই তরুণী। ঘরের ফ্লোরে ঘুমিয়ে ছিলেন তিনি।

ওইদিন দিবাগত রাত ২টার দিকে নিজাম উদ্দিন, আনোয়ার হোসেন জলিল ও দুদু মিয়া ঘরে প্রবেশ করে। তারা তরুণীর ভাগ্নির জামাইকে মারধর করে। এসময় তার পকেটে থাকা একটি স্যামসাং জে-১ মডেলের মোবাইল ফোন ও তার স্ত্রীর দুটি ফোন ছিনিয়ে নেয় তারা। প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ভাগ্নির জামাইকে ঘর থেকে বের করে দেয়। তারা টেনেহিঁচড়ে ওই তরুণীকে ঘর থেকে বের করে পার্শ্বস্থ একটি গলিতে নিয়ে গণধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় ওই তরুণী বাদী হয়ে সোমবার বিমানবন্দর থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিন ধর্ষককে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়।

পুলিশ কর্মকর্তা জেদান আল মুসা জানান, ধর্ষিতা ওই তরুণী ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওসমানী হাসপাতালে রয়েছেন।

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত