ঢাকা, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২১
SylhetNews24.com
শিরোনাম:

সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গমাতার নামে নামকরণের সিদ্ধান্ত

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২১  

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছার নামে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
সোমবার দুপুরে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব)
মো. নঈমুল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়
বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা.
মোর্শেদ আহমেদ চৌধুরী সভাপতিত্বে নগরীর চৌহাট্টাস্থ অস্থায়ী ক্যাম্পাসের
হলরুমে এক সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে ‘বঙ্গমাতা শেখ
ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট’ নামকরণের প্রস্তাব
করেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোর্শেদ আহমেদ চৌধুরী।

এই প্রস্তাবের সাথে সভায় উপস্থিত সকল সিন্ডিকেট সদস্য সম্মতি প্রকাশ করলে নতুন নামকরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া সভায়
বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের জন্য প্রস্তাবিত উন্নয়ন পরিকল্পনার
বিষয়ে আলোচনা হয়।

সিন্ডিকেট সভায় উপস্থিত ছিলেন- সংসদ সদস্য ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল
ইসলাম নাহিদ, সংসদ সদস্য গাজী মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ, জাতীয় অধ্যাপক ডা.
শাহলা খাতুন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড.
মুহাম্মদ আলমগীর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি
অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের
সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক
ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার খলিলুর
রহমান, আর. টি. এম. ইন্টারন্যাশনালের প্রতিষ্ঠাতা ড. আহমদ আল-কবির, স্বাস্থ্য
মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. শাখাওয়াত হোসেনসহ সিন্ডিকেটের অন্যান্য
সদস্যবৃন্দ।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরেই সিলেটবাসীর দাবি ছিল একটি পূর্ণাঙ্গ মেডিকেল
বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের। এ জনদাবিকে গুরুত্ব দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার
নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের ১ অক্টোবর অনুমোদন হয় সিলেট
মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আইন। একই বছরের ২০ নভেম্বর উপাচার্য হিসেবে
দায়িত্ব গ্রহণ করেন অধ্যাপক ডা. মোর্শেদ আহমেদ চৌধুরী।

 

আরও পড়ুন
শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত