ঢাকা, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
২৫ জনকে আসামি করে আবরার হত্যার চার্জশিট:অভিযুক্তরা উচ্ছৃঙ্খল ছিল

সিলেট প্রেসক্লাব নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করছে:শাবি ভিসি ড. আমিনুল

প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭  

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আমিনুল হক ভূঁইয়া বলেছেন, সিলেট প্রেসক্লাব হচ্ছে সিলেট অঞ্চলের অহংকারের জায়গা।

সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতার কল্যাণে কাজ করার পাশাপাশি এই প্রতিষ্ঠানটি নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

রোববার অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে সিলেট প্রেসক্লাব আয়োজিত উন্মুক্ত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আগামীতে নতুন প্রজন্মরাই নেতৃত্ব দিবে। তাই তাদের মেধা বিকাশে আমাদেরকে সচেতন হতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ, ভাষা আন্দোলন এবং দেশপ্রেমের বীজ তাদের অন্তরে রোপন করতে হবে।ভিশন ২০২১, ভিশন ২০৪১ তারাই বাস্তবায়ন করবে।
প্রেসক্লাব ভবনে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় সিলেট নগরীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে। তিনটি গ্রুপে প্লে থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে এ প্রতিযোগিতা বেলা সোয়া তিনটায় শুরু হয়ে বিকেল ৫টায় শেষ হয়। এরপর সন্ধ্যা পৌনে ছয়টায় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আমিনুল হক ভূঁইয়া প্রতিযোগীদের উদ্দেশ্যে  বলেন,সবাই হয়তো প্রথম হবে না।কিন্তু এ প্রতিযোগিতায় তোমাদের চিন্তা ও মেধার প্রতিফলন ঘটেছে। তোমরাই হবে আগামী দিনের জয়নুল আবেদিন, এস এম সুলতান ও কামরুল হাসান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মতো নয়নাভিরাম সুন্দর একটি দেশ আমরা পেয়েছি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা লড়াই সংগ্রাম করে আমাদেরকে স্বাধীন এ দেশটি উপহার দিয়ে গেছেন। এদেশকে কোনোভাবেই জঙ্গিবাদের কাছে পরাজিত হতে দেয়া যাবে না।

প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক মো. আবদুল আহাদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ মো. রেনু। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. জহির বিন আলম, চারুকলি চারু বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা অরবিন্দ দাস গুপ্ত।

সভাপতির বক্তব্যে প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবির শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সাংবাদিকতা, শিল্প-সাহিত্য ও সংস্কৃতির চর্চায় সিলেট প্রেসক্লাবের কার্যক্রম আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।  

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন,সিলেট প্রেসক্লাবের সহসভাপতি মুহাম্মদ আমজাদ হোসাইন ও বাপ্পা ঘোষ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির সদস্য মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন শিহাব, কোষাধ্যক্ষ মো. আফতাব উদ্দিন, পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাঈদ নোমান, নির্বাহী সদস্য কাউসার চৌধুরী ও আনিস রহমানসহ ক্লাবের সদস্যবৃন্দ।

প্রতিযোগিতায় তিনটি গ্রুপের মধ্যে ‘ক’ গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করে স্কলার্সহোম পাঠানটুলা ক্যাম্পাসের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র দিব্যজ্যোতি গোস্বামী (সূর্য), দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে ব্লুবার্ড স্কুল এন্ড কলেজের দ্বিতীয় শ্রেণির নাদিমুল হক মাহদি ও তৃতীয় স্থান অর্জন করে প্রিয়ন্তী দাস (পূর্ণম)।

‘খ’ গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করে সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির যুবরাজ মালাকার (কথা), যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে রাইজ স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির রাইসা আমিন চৌধুরী ও আনন্দ নিকেতনের সপ্তম শ্রেণির সৌম্য দাস অর্নব, তৃতীয় স্থান যৌথভাবে অর্জন করে ব্লুবার্ড স্কুল এন্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির দেবরাজ বণিক দীপু ও একই প্রতিষ্ঠানের একই শ্রেণির তাহসিনা মাহজাবিন ইশাবা।
‘গ’ গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করে ব্লু বার্ড স্কুল এন্ড কলেজের ৮ম শ্রেণির ফাহিমা আলভী রহমান (রিফা), দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে সানজিদা তাসনিম শামা, যৌথভাবে তৃতীয় স্থান অর্জন করে সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির অদিতি দেব সৌমি ও অর্পিতা কর্মকার পায়েল।
প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অরবিন্দ দাস গুপ্ত ও ভানু লাল দাস।

আরও পড়ুন
ঐতিহ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত