ঢাকা, ১৯ জুন, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে ইইউ প্রতিনিধিদলের উদ্বেগ পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ জারদারি গ্রেফতার ৪০ লাখ ঘুষ: দুদক পরিচালক এনামুল বাসির সাময়িক বরখাস্ত ওসি মোয়াজ্জেমকে খুঁজেই পাচ্ছে না পুলিশ!

মুহম্মদ নূরুল হক : জীবন ও সাধনা বিষয়ে গবেষনা

সিলেট এম.সি কলেজের সাহেদা আখতারের পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০১১   আপডেট: ২৮ এপ্রিল ২০১১

সাহেদা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ডঃ মুহম্মদ শামসুল আলমের গবেষণা তত্ত্বাবধানে গবেষণাকর্ম সমাপ্ত করেন। তাঁর গবেষণার বিষয় “মুহম্মদ নূরুল হক : জীবন ও সাধনা”। একই বিশ্ববিদ্যালয় হতে তিনি এম.ফিল ডিগ্রিও লাভ করেছেন।

 মুহম্মদ নূরুল হক ছিলেন গ্রন্থাগার আন্দোলনের পথিকৃত, ভাষা সৈনিক, সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও আজীবন সম্পাদক, মাসিক আল-ইসলাহ্ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পাদক।

তিনি অর্ধ শতাব্দীকাল নিজ মেধা, শ্রম ও একাগ্রতা নিয়ে ঐতিহ্যবাহী সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদকে একটি সমৃদ্ধ পাঠাগারে রূপ দিয়ে যান। বহু প্রতিকূল পরিবেশ ও অবস্থার সাথে নিরন্তর লড়াই করে সাহিত্য সংসদকে তিনি দেশের একটি উল্লেখযোগ্য মানের প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলেন। সাহিত্য সাধনার নিরলস কর্মী মরহুম মুহম্মদ নূরুল হক প্রথমে ‘অভিযান’ নামে একটি হাতে লেখা পত্রিকা বের করেন।

১৯৩১ সালে এই পত্রিকাই মাসিক ‘আল-ইসলাহ্’ নামে আত্মপ্রকাশ করে মুদ্রিত আকারে বের হয়। এই পত্রিকার মাধ্যমে তিনি বাংলা ও আসাম অঞ্চলের সাহিত্য চর্চায় যুগান্তকারী অবদান রাখেন। তিনি প্রায় অর্ধ শতাব্দীরও অধিককাল আল-ইসলাহ্ প্রকাশ ও সম্পাদনা করেন।মরহুম মুহম্মদ নূরুল হককে সাহিত্য ও সমাজসেবার স্বীকৃতিস্বরূপ জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, বাংলা একাডেমীসহ দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন পদক ও সম্মানে ভূষিত করে। তিনি মরহুম আমীনূর রশীদ চৌধুরী স্মৃতি স্বর্ণপদকও লাভ করেন।নিরব সমাজকর্মী মরহুম মুহম্মদ নূরুল হক একজন প্রথিতযশা সাহিত্যিকও ছিলেন। তাঁর ৭টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। অসংখ্য গ্রন্থ অপ্রকাশিত আকারে রয়ে গেছে। তিনি বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্রের নিয়মিত কথক ছিলেন।
প্রচারবিমূখ একই বিরল ব্যক্তিত্ব ১৯০৭ সালের ১৯ মার্চ সিলেট জেলার বিশ্বনাথ থানার দশঘর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৮৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর সিলেট শহরের দরগা মহল¬া ঝরণারপারস্থ তাঁর নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন।
তাঁর সন্তানরা স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। প্রথম কন্যা হামিদা খাতুন শেফালী একজন বিশিষ্ট লেখিকা, দ্বিতীয় কন্যা যোবেদা খাতুন শিউলী একজন গল্পকার, তৃতীয় কন্যা রোকেয়া খাতুন রুবী বিশিষ্ট লেখিকা, ছড়াকার ও কর কমিশনার, প্রথম পুত্র আজিজুল হক মানিক সিলেটের দৈনিক জালালাবাদ পত্রিকার সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ১ নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলর, দ্বিতীয় পুত্র এনামুল হক জুবের একজন বিশিষ্ট ছড়াকার ও সাংবাদিক। তিনি দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার সিলেট ব্যুরো প্রধান। তৃতীয় পুত্র সিরাজুল হক তালহা একজন বিশিষ্ট ছড়াকার, কনিষ্ঠা কন্যা সাজেদা খাতুন শুভী একজন লেখিকা, বর্তমানে তিনি লন্ডন প্রবাসী। চতুর্থ পুত্র শফিকুল হক বেলাল ব্যবসায়ী ও সাবেক ফুটবল খেলোয়াড়। পঞ্চম পুত্র জিয়াউল হক খালেদ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লেঃ কর্ণেল পদে কর্মরত, কনিষ্ঠ পুত্র নাজমুল হক তারেক একজন ছড়াকার ও  ব্যবসায়ী।

আরও পড়ুন
ঐতিহ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত