ঢাকা, ২০ জুলাই, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ব্রেকিং নিউজ--বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

সিলেটে টাটা গাড়ির গ্র্যান্ড মেলার উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০১৯  

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেছেন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার লক্ষ্য অর্জনে সবার দায়িত্ব রয়েছে। আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশের জন্য কাজ করতে হবে। এক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের উইন-উইন ভিত্তিতে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখার আহবান জানান। 

গতকাল বুধবার (১৭ এপ্রিল ২০১৯) দুপুরে সিলেটে টাটা গাড়ির বর্ণাঢ্য গ্র্যান্ড মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহবান জানান।

নিটল মর্টস লিঃ ও সিলেটের জালালাবাদ মর্টস এর যৌথ উদ্যোগে নগরীর হুমায়ুন রশীদ চত্বর সংলগ্ন শিববাড়ি এলাকায় পরিবহন জগতের জনপ্রিয় টাটা গাড়ির গ্র্যান্ড মেলার আয়োজন করা হয়। ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে সিলেটে এসে মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তার সাথে ছিলেন দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী নিটল নিলয় গ্রæপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ। অনুষ্ঠানস্থলে প্রধান অতিথি সহ অতিথিদেরকে ফুলের তোড়া দিয়ে ও পাপড়ি ছিটিয়ে স্বাগত জানানো হয়। পরে প্রধান অতিথি বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে এবং ফিতা কেটে টাটা গাড়ির গ্র্যান্ড মেলার উদ্বোধন করেন।

মেলা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নিটল নিলয় গ্রæপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জালালাবাদ মর্টস এর চেয়ারম্যান ও সিলেট চেম্বারের পরিচালক এহতেশামুল হক চৌধুরী। নিটল মর্টস লিঃ এর সিলেটের ম্যানেজার মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন নিটল মর্টস এর পরিচালক এস. এ. ফারুকী, সিটি কাউন্সিলর আজম খান, ট্রাক মালিক সমিতির সেক্রেটারী জাবেদ সিরাজ। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ ইউনুস, সিলেটের জেলা প্রশাসক এম. কাজী এমদাদুল ইসলাম, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবির, সিটি কাউন্সিলর এডভোকেট ছালেহ আহমদ।  

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, আমরা সিলেটকে সত্যিকারের মডেল সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। সিলেট শহরে পরিবহনের জন্য সিটি বাস চালু করতে চাই। এব্যাপারে তিনি নিটল নিলয় গ্রæপের সহযোগিতা কামনা করেন। সিলেট মডেল টাউন না হওয়ার কোন কারন নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, সিলেটের মানুষ অত্যন্ত উদার ও উন্নয়নের ব্যাপারে আগ্রহী। তারা বিনে পয়সায় রাস্তা প্রশস্থ করার জন্য মেয়রকে মূল্যবান জায়গা জমি উপহার দিচ্ছেন। যেটি দেশের মধ্যে একটি ব্যতিক্রমী ঘটনা। তিনি মেয়র আরিফুল হকের ভূঁয়সী প্রশংসা করে বলেন মেয়র অত্যন্ত কমিটমেন্ট নিয়ে দৃঢ়তার সাথে সিলেটকে মডেল টাউন বানানোর জন্য রাস্তাঘাট প্রশস্থকরণের জন্য কাজ করছেন। ফলে জনগণের প্রত্যাশা পূরণে আমরা সফল হবোই। যানজট নিরসনে টাউন বাস চালুর উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি নিটল নিলয় গ্রæপের চেয়ারম্যানকে এব্যাপারে সহযোগিতার আহবান জানান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকা সিটির একটি খাল উদ্ধারের উদাহরণ দিয়ে বলেন, সরকারী এ খালটি উদ্ধারে ৩৩ কোটি টাকা ভর্তুকী দিতে হচ্ছে, অথচ সিলেটে শতকোটি টাকার জায়গা জমি নাগরিকরা বিনে পয়সায় ছেড়ে দিয়েছেন। তাদের এই উদারতা ও আন্তরিকতার জন্য অবশ্যই তাদেরকে সম্মানিত করা হবে। তিনি সিলেটে বাস সার্ভিস চালু এবং স্কুল কলেজে বাস প্রদানের জন্য মাতলুব আহমাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, সিলেটে যে টাউন বাস চালু হবে তাতে লেখা থাকবে “সিলেট বিশ্বের বিবেক এবং রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অভিধান সিলেটের উন্নয়ন”। তিনি ভিক্ষুকমুক্ত সিলেট গড়ার জন্য ব্যবসায়ী ও দানশীল ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করেন। অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ঐতিহ্য সংরক্ষণ করে আবু সিনা ছাত্রাবাসের জমিতেই জেলা হাসপাতাল প্রতিষ্ঠিত হবে। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমরা সিলেটকে একটি মডেল নগরী করতে চাই। আমি আপনাকে আশ্বাস দিচ্ছি নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে আমি জনস্বার্থে কাজ করে যাবো। নগরবাসী যে সহযোগিতা করেছেন তা নজিরবিহীন। আমরা তাদের সম্মানিত করবো এবং সিলেটবাসী প্রমান করেছেন আমাদের শহর গড়তে আমরাই যথেষ্ট। তিনি বলেন, সিলেটে এসি, নন এসি এবং মহিলাদের জন্য আলাদা বাস চালু করার উদ্যোগ আমরা নিয়েছি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের সাথে আলাপ করে আমরা “নগর এক্সপ্রেস” নামে বাস নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তিনি সিটি সার্ভিস চালুর জন্য মাতলুব আহমাদের সহযোগিতা কামনা করে বলেন তিনি অবশ্যই আমাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসবেন কারন অনেক আগেই তাকে আমরা সিলেটের সিটিজেনশীপ দিয়েছি। তিনি বলেন, এসব টাউন বাসগুলোতে ওয়াইফাইয়ের ব্যবস্থা থাকবে। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী সবসময়ই ব্যবসায়ীদের প্রতি খেয়াল রাখছেন। তার সহযোগিতায় আমরা সিলেটকে একটি সুন্দর ব্যবসাবান্ধব নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। তার নির্দেশনাতেই আমরা কাজ করে যাবো। তিনি টাউন বাস চালুর আহবান জানান। 

সভাপতির বক্তব্যে মাতলুব আহমাদ বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সিটি মেয়র এবং ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ যে দাবী করেছেন সব দাবীর ব্যাপারে আমি একমত। সবগুলো দাবী আমি মেনে নিলাম। সিলেটের পরিবহন সেক্টরে যতধরণের সহযোগিতা প্রয়োজন আমরা বসে সেগুলো চালু করার ব্যবস্থা নিবো। আমরা সিলেটকে দেশ এবং বিশ্বের মধ্যে উন্নত শহর হিসেবে গড়ে তুলবো। অনুষ্ঠানে নগরীর বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, সিলেট চেম্বার ও পরিবহন সেক্টরের নেতৃবৃন্দ ও ব্যবসায়ীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  

আরও পড়ুন
বাণিজ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত