ঢাকা, ২৪ জানুয়ারি, ২০২০
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
হাইকোর্টে জামিন চাইলেন প্রথম আলোর সম্পাদক এসএসসি পরীক্ষা ৩ ফেব্রুয়ারি,সংশোধিত রুটিন প্রকাশ ইভটিজিং ও নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে বাল্যবিবাহ রোধ ও শিক্ষা বাড়বে মৌলভীবাজারে বাগানে ৪ জনকে কুপিয়ে হত্যার পর ঘাতকের আত্মহত্যা ভারতের নাগরিকত্ব আইন সংশোধনের প্রয়োজন ছিল না:প্রধানমন্ত্রী হাসিনা শিক্ষা বানিজ্যের প্রতিবাদে সিলেট ল কলেজের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ‘প্রথম আলো’র সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণ: আদালতে মজনুর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি সিলেটে বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ১ ‘হাইকোর্টের আদেশ মেনে আন্দোলন থেকে বিরত থাকুন’....কাদের দক্ষিণ সুরমায় ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ১ খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিতের বিষয়ে যা বললেন অ্যাটর্নি জেনারেল রিট খারিজ,৩০ জানুয়ারিই হবে ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন মুজিববর্ষ উদযাপনে মহাপরিকল্পনা,বছরজুড়ে দেশ-বিদেশে ২৯৮টি অনুষ্ঠান

সিলেটি শিব্বিরকে ফোন করলেই গলায় আটকা মাছের কাঁটার সমাধান !

প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭  

আমরা মাছে ভাতে বাঙ্গালী। গলায় মাছের কাঁটা আটকে যাওয়া আমাদের দৈনন্দিন ঘটনা।

আপনার বা আপনার স্বজনদের কারো গলায় মাছের কাঁটা (গছা) বা অন্য কিছু লেগে গেছে? দুশ্চিন্তার কারণ নেই, আল্লাহর রহমতে সমাধান পেয়ে যাবেন।

বয়স্ক হলে নিজে আর বাচ্চাদের হলে মা ফোন করলেই হবে বলে সিলেট নিউজ ২৪ডটকম কে জানালেন শিব্বির। তিনি জানান, আজ তার এই সেবা দেয়ার ১৫ বছর পূর্ণ হয়েছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করতে পারেন +৮৮ ০১৭১৬ ৮৭১৯৪২ নাম্বারে। মো. শিব্বির আহমেদ  (সিলেটি শিব্বির) ওসমানীনগর থানার ব্রাক্ষণ শাষণ  গ্রামের তেরো মাইলের বাসিন্দা। তিনি নিজে একটি পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন বলে জানালেন।

মোবাইলে ফোনের মাধ্যমে বিশ্বের যে কোনো দেশ থেকে গলায় আটকে যাওয়া কাঁটার সমাধান দিয়ে থাকেন। ঘটনাটি আশ্চর্যজনক হলেও সত্য।

দীর্ঘ ১৫ বছর থেকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে  নিরলসভাবে মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন। দেশ-বিদেশে সবার কাছে তার মোবাইল নাম্বার ছড়িয়ে পড়েছে ।

এ ব্যাপারে তার কাছ থেকে সুবিধা পাওয়া কয়েকজন মানুষের সাথে আলাপ করে জানা যায়, ফোনে আলাপ করার পর অনেকটা অলৌকিক ভাবে গলাত কাঁটা সেরে যায়!তিনি নিজেউ বলেন, বিষয়টা অলৌকিকের মতোই।

এ ব্যাপারে শিব্বির আহমদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান-২০০২ এর ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে মানুষের সেবা করে আসছি। এটি আল্লাহর রহমত, আমি উছিলা মাত্র।

এখন প্রতিদিন  ৫০-৬০ জন রোগির সেবা করে থাকি। কোনো টাকা পয়সা গ্রহণ করি না, কেউ দিলেও নেই না।

আপনার কাজ হয়ে গেলে ফোন করে আমাকে কৃতার্থ করবেন। তিনি সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত