ঢাকা, ২৬ মে, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ব্রেকিং নিউজ---শ্রীলংকায় ৮টি পৃথক বোমা হামলায় নিহত বেড়ে ২০৭,কারফিউ জারি ‘সরকার বেকায়দায় নেই যে খালেদাকে প্যারোলে মুক্তি দিতে হবে’ আওয়ামী লীগ সরকারের জনপ্রিয়তা বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী সুনামগঞ্জে যুবক খুনের নেপথ্যে নৌ-পথে চাঁদাবাজি, গ্রেপ্তার ৮ নুসরাত হত্যা: আ’লীগ নেতা রুহুল আমিন আটক সিলেটের ওসমানীনগরে বিধবাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামাশ্বশুর গ্রেফতার

‘সালোয়ার-গেঞ্জির নোটিস’: তদন্তে সুফিয়া কামাল হলে কমিটি

প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০১৭  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের কথিত একটি নোটিশ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে তোলপাড় চলার প্রেক্ষিতে নিজেদের অবস্থা ব্যাখ্যা করেছে হল কর্তৃপক্ষ।

গত দুই দিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ওই নোটিশে বলা হয়, ‘সকল আবাসিক ছাত্রীদের জানানো যাচ্ছে যে, হলের অভ্যন্তরে দিনের বেলা অথবা রাতের বেলা কখনোই অশালীন পোশাক (সালোয়ার এর ওপর গেঞ্জি) পরে ঘোরাফেরা অথবা হল অফিসে কোনো কাজের জন্য প্রবেশ করা যাবে না। অন্যথায় শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য হল কর্তৃপক্ষ বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

এই নির্দেশনার নিচে শুধু লেখা আছে ‘আদেশক্রমে- হল কর্তৃপক্ষ’। তবে কোন হলের কর্তৃপক্ষ তা উল্লেখ নেই। নেই কারো স্বাক্ষর।

এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেসব প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, নোটিশটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের।

বিতর্কের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার বিকালে কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেছে।

এ ধরনের কোনো নোটিশ জারি করা হয়নি দাবি করে কর্তৃপক্ষ বলছে, ‘অত্র হলের মেয়েদের পোশাক পরিধান সংক্রান্ত একটি বিকৃত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নোটিশ অনলাইন ভিত্তিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ও সামাজিক যোগাযোগ সাইটে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। উক্ত বিকৃত নোটিশটি হল কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত নয়।’

বিষয়টি নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

প্রাধ্যক্ষ সাবিতা রিজওয়ানা বলেন, “আমরা সালোয়ার-গেঞ্জি নিয়ে কোনো নোটিস দিইনি। কে বা কারা যে দিল, সেটি খুঁজে বের করতেই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।”

তবে হলের আবাসিক শিক্ষক মনিকা চক্রবর্তী বলেন, “অনেক সময় মেয়েরা এত ক্যাজুয়ালি ঘোরাফেরা করে যে খুবই দৃষ্টিকটূ। হলের অফিসে পুরুষ স্টাফ ও অভিভাবকেরা থাকেন, এক্ষেত্রে নারীর নিজের কাছে অসম্মানজনক পোশাক না পরাই শ্রেয়। “হলে শালীনতা বজায় রাখা আমাদের উদ্দেশ্য। হলের মেয়েরা দৃষ্টিকটূ পোশাক পরুক, তা আমরা চাইতে পারি না।”

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত