ঢাকা, ০৮ জুলাই, ২০২০
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
দেশে করোনা মোকাবিলার পরিস্থিতি দেখে হতাশ চীনা বিশেষজ্ঞ দল করোনার মধ্যেও উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে সরকার সিলেট বিভাগে নতুন আরও ১৪২ জনের করোনা শনাক্ত,সিলেটেই ৭৮ সিলেটে করোনা রোগী বাড়ছেই, হাসপাতালে `ঠাঁই নাই, ঠাঁই নাই` অবস্হা

শাবিপ্রবিতে মাসব্যাপী র‌্যাগিং বিরোধী ক্যাম্পেইন শুরু

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০২০  

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং (আইপিই) বিভাগের উদ্যোগে বুধবার থেকে মাসব্যাপী ‘র‌্যাগিং বিরোধী ক্যাম্পেইন’ শুরু হয়েছে।

আগামী ২ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ে নবীনবরণের মাধ্যমে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হবে। এরপর থেকে কোন নবীন শিক্ষার্থীদের যাতে কেউ র‌্যাগ না দেয় সে জন্য এই ক্যাম্পোইন শুরু হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মধ্যে র‌্যাগিং বিরোধী সচেতন বৃদ্ধিতে এ ক্যাম্পেইন করা হচ্ছে বলে বিভাগীয় সূত্রে জানা যায়।

এ বিষয়ে আইপিই বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মুহসিন আজিজ খান বলেন, ‘নবীন শিক্ষার্থীদের আগমনে ক্যাম্পাসে র‌্যাগিং বাড়ে। এর প্রেক্ষিতে আমরা সবার মধ্যে র‌্যাগিং বিরোধী সচেতনতা বৃদ্ধিতে এ ক্যাম্পেইন শুরু করেছি। ‘ক্লাসে ক্লাসে গিয়ে সবাইকে র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে সচেতন করা হচ্ছে। আমরা দেখেছি, অনেক সময় নবীন শিক্ষার্থীদের র‌্যাগিং করা হলে তারা শিক্ষক বা যথাযথ কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারে না। এর প্রেক্ষিতে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা যাতে সঠিকভাবে কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারে সেজন্য আমাদের এ ক্যাম্পেইন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিংয়ে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন উপাচার্য। সেই নীতির আলোকে আমরা এ ক্যাম্পেইন শুরু করেছি। ধীরে ধীরে সম্পূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ধারা চলবে। আমরা চাই শাবিপ্রবিতে কোন র‌্যাগিং থাকবে না।’ মাসব্যাপী এ কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিভাগের ক্লাস রুমের সামনে র‌্যাগিং বিরোধী স্টিকার লাগানো হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন জায়গাতে আইপিই এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে র‌্যাগিং বিরোধী ব্যানার ফেস্টুন লাগানো হয়েছে।

এছাড়া এ ক্যাম্পেইনে সাথে আইপিই এলামনাই এসোসিয়েশন একাত্মতা পোষণ করেছেন বলে জানান ড. মুহসিন আজিজ খান। এসময় ক্যাম্পেইনে বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ, সোসাইটির নেতৃবৃন্দ ও সচেতন শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের এক শিক্ষার্থীকে অর্ধনগ্ন করে রাতভর র‌্যাগিং করার দায়ে বিভিন্ন বিভাগের ২১ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি প্রদান করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পাশাপাশি র‌্যাগিংয়ে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এরপর থেকে র‌্যাগিং কমে এসেছে।

আরও পড়ুন
শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত