ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
করোনার টিকা পেলেই সম্মুখসারির যোদ্ধাদের অগ্রাধিকার: প্রধানমন্ত্রী অনেকদূর এগিয়েছি সত্য,তবে যেতে হবে আরও বহুদূর:প্রধানমন্ত্রী সত্য বলায় হয়তো আমার চাকরিও থাকবে না:ওবায়দুল কাদেরের ভাই ভ্যাকসিন কবে আসবে সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না: ভারতীয় হাইকমিশন টিকা নিয়ে সরকার ‘তেলেসমাতি’ খেলা শুরু করেছে:রিজভী ২৮ জন সিলেটিসহ মাত্র ৩৪ যাত্রী নিয়ে লন্ডন থেকে আসলো বিমান

মোবাইল ফোনে প্রেম,ডেকে নিয়ে দুই বোনকে ১১জন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ

প্রকাশিত: ১ জানুয়ারি ২০১৬  

নোয়াখালীতে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার ফাঁদে ফেলে কথিত প্রেমিকসহ ১১ দুর্বৃত্ত মিলে প্রেমিকা ও তার বোনকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে।

দুই বোনকে ধর্ষণের অভিযোগে একজনের কথিত প্রেমিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার সুমন সুধারাম উপজেলার নোয়ান্নই ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত তোফায়েলের ছেলে।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই ইউনিয়নের গোরাপুর গ্রামে এ ঘটনার পর রাতেই সে আটক হলেও তার সহযোগীদের ধরা যায়নি বলে সুধারাম মডেল থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, শুক্রবার সকালে দুই বোনের মধ্যে বড়জন তার ‘প্রেমিক’ সুমনসহ ওই ১১ জনের বিরুদ্ধে সুধারাম থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। বাকি আসামিরা হল- একই গ্রামের সুজন, জাবেদ, রনি, লুতু, মামুন, শাকিল, রাশেদ, আকবর, রিয়াজ ও হেলাল।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি আনোয়ার বলেন, সুমনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে গোরাপুর গ্রামের ওই তরুণীর কথাবার্তার এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

“বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বেড়ানোর কথা বলে ওই তরুণীকে ডেকে নেয় সুমন। মেয়েটি ছোট বোনকেও সঙ্গে নিয়ে যায়। দুই বোনকে একটি ধানক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ১০ সহযোগীর সঙ্গে মিলে ধর্ষণ করে সুমন।”

পরে রাত ১০টার দিকে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে পুলিশে খবর দেয় বলে জানান তিনি। ওসি আনোয়ার বলেন, “দুই বোনকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শনিবার তাদের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে।”

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী জানান, শনিবার তাদের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।

আরও পড়ুন
সংগঠন সংবাদ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত