ঢাকা, ০১ মার্চ, ২০২১
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখল: প্রেসিডেন্ট ও সু চি গ্রেফতার করোনার টিকা পেলেই সম্মুখসারির যোদ্ধাদের অগ্রাধিকার: প্রধানমন্ত্রী অনেকদূর এগিয়েছি সত্য,তবে যেতে হবে আরও বহুদূর:প্রধানমন্ত্রী সত্য বলায় হয়তো আমার চাকরিও থাকবে না:ওবায়দুল কাদেরের ভাই ভ্যাকসিন কবে আসবে সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না: ভারতীয় হাইকমিশন টিকা নিয়ে সরকার ‘তেলেসমাতি’ খেলা শুরু করেছে:রিজভী ২৮ জন সিলেটিসহ মাত্র ৩৪ যাত্রী নিয়ে লন্ডন থেকে আসলো বিমান

ভারতে ১৫`শ টন ইলিশ রপ্তানির বিশেষ অনুমতি

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০  

প্রায় দেড় হাজার টন ইলিশ আগামী সপ্তাহে বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রবেশের প্রস্তুতি নিচ্ছে। ব্যবসায়ীদের ইলিশ রপ্তানির বিশেষ অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ।

২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রপ্তানি নিষিদ্ধ থাকলেও এবার রপ্তানির বিশেষ অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে ভারতে ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন মাছ আমদানিকারক সমিতির সেক্রেটারি সৈয়দ আনোয়ার মকসুদ। 

তিনি বলেন, 'বাংলাদেশ থেকে প্রায় ২০০ মাছ রপ্তানিকারক ভারতে মাছ রপ্তানির জন্য সরকারের কাছে অনুমতি চেয়েছিল। এর মধ্যে কেবল ৯ জনকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ১৪৫০ টন ইলিশ আগামী সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতায় অবতরণ করবে। এটি বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করবে।

বাংলাদেশ থেকে যে ইলিশ ভারতে যাবে তা ৮শ গ্রাম থেকে ১২শ গ্রামের হবে। আকারের ওপর নির্ভর করে ইলিশের পাইকারি দাম প্রতি কেজি আটশ থেকে ১৪শ টাকা হবে।'

দেশের চাহিদা মেটাতে ২০১২ সাল থেকে বাংলাদেশ সরকার ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ রেখেছে। তবে গত বছর পূজার সময় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গে ৫০০ টন ইলিশ রপ্তানির ব্যবস্থা করেছিলেন।

তবে ব্যবসায়ীদের মতে, রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রতিবছর মৌসুমে হাজার হাজার টন ইলিশ চোরাই পথে পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতে পাচার হতো।

সে কারণে ইলিশের বাজার মৌসুমেও চাঙ্গা থাকত। গত এক সপ্তাহ ধরে স্থল সীমান্ত দিয়ে ভারতে ইলিশ ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না।

পশ্চিমবঙ্গের ভোজন রসিকেরা গঙ্গার ইলিশেই স্বাদ মেটাচ্ছেন। গত দুই বছরে সেভাবে ইলিশ জালে পড়েনি। এ বছর প্রচুর ইলিশ ওঠার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছিলেন মৎস্যজীবীরা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত হতাশ ক্রেতা-বিক্রেতারা। খবর: দ্য ইকোনমিক টাইমস।

আরও পড়ুন
বাণিজ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত