ঢাকা, ২৪ নভেম্বর, ২০২০
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
রাসূল (সা.) কে ব্যঙ্গ করে ফ্রান্স মুসলমানদের কলিজায় আগুন লাগিয়েছে সেনাপ্রধানকে প্রধানমন্ত্রীর ‘সেনাবাহিনী পদক’ প্রদান প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ: দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমরা দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ সিলেট নগরীর পাঠানটুলায় বাসা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার, তরুণী আটক

ভারতের উত্তরপ্রদেশে দাড়ি রাখার ‘অপরাধে’ মুসলিম পুলিশ বরখাস্ত

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০২০  

মুসলিম বিদ্বেষ, নির্যাতন ও দলিত ধর্ষণের ঘটনায় প্রায়ই সংবাদ শিরোনামে আসে ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্য। 

সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ একজন হিন্দু পুরোহিত ও বিজেপি নেতা। অদ্ভুত সিদ্ধান্ত বললেও কম বলা হয়। তব, এমনই এক সিদ্ধান্ত নেয়া হল র রাজ্য উত্তরপ্রদেশে। মুসলিম নির্যাতনে তার সরকার মদত দেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। 

সেই উত্তরপ্রদেশেই এবার গালে দাড়ি রাখার ‘অপরাধে’ উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক সাব ইন্সপেক্টর (এসআই)-কে বরখাস্ত করা হল।

অদ্ভুত এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বাগপত জেলার রমলা থানায়। জানা গিয়েছে, বরখাস্ত হওয়া ওই পুলিশকর্মীর নাম ইন্তসার আলি। এরপরই প্রশ্ন উঠেছে, দাড়ি রাখা কি অপরাধ ভারতে? যদিও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের তরফে বলা হয়েছে, পুলিশের ড্রেস কোডের নিয়ম ভাঙায় বাগপত জেলার রামলা থানার সাব-ইন্সপেক্টর আলিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। 

তবে বরখাস্ত হওয়ার পর ওই পুলিশকর্মী জানিয়েছেন, দাড়ি রাখতে চেয়ে অনুমতির জন্যে তিনি গত বছরের নভেম্বর মাসেই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছিলেন। কিন্তু দিনের পর দিন অপেক্ষা করেও সেই আবেদনের কোনও প্রত্যুত্তর পাননি তিনি। 

এমনকী সাব-ইন্সপেক্টর আলি এমনও দাবি করেছেন, গত ২৫ বছরের কর্মজীবনে তিনি আগেও দাড়ি রেখেছেন। কিন্তু কখনই তা তার কাজের জন্যে সমস্যা হয়নি। তিনি বলেন, ‘আমি ৯৪ সাল থেকে উত্তরপ্রদেশ পুলিশে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করছি। কেউ এর আগে কখনও আমায় দাড়ি নিয়ে কিছু বলেনি। বাধাও দেয়নি। আমাকে যখন গতবছর বলা হয় উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে, তখনই আমি সেই অনুমতি চেয়ে আবেদন করি। কিন্তু আজও তার উত্তর পাইনি। আমায় হ্যাঁ বা না কিছুই বলা হয়নি।’

পুলিশের উপর মহলের দাবি, রাজ্য পুলিশের ড্রেস কোড ম্যানুয়ালে উল্লেখ রয়েছে, শিখ সম্প্রদায়ের সদস্যরা ছাড়া অন্যান্য পুলিশকর্মীরা কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোনওভাবেই দাড়ি রাখতে পারবেন না। ওই নিয়মকে সামনে রেখেই আলিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছিল। এমনটাই জানিয়েছেন বাগপত জেলার পুলিশ সুপার অভিষেক সিং। তিনি জানান, ‘অনুমতি ছাড়াই দাড়ি রাখার কারণে আলিকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত