ঢাকা, ২২ অক্টোবর, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ব্রেকিং নিউজ--বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

বিয়ের পর স্বামীসহ প্রকাশ্যে মাহি: লাল শাড়ি পড়ে শ্বশুর বাড়ি সিলেটে আসছেন দেশের জনপ্রিয় নায়িকা

প্রকাশিত: ২৫ মে ২০১৬  

বুধবার রাত তখন ৮টা ৪০ মিনিট। ঠিক সে সময়ই ঢাকার ছবির বর্তমানের  অন্যতম শীর্ষ নায়িকা মাহিয়া মাহি তার স্বামী পারভেজ মাহমুদ অপুকে সঙ্গে নিয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলেন।

মাহি বললেন, তিনি অপু, আমার স্বপ্নের রাজকুমার। যার সঙ্গে আমি আমার জীবন বেঁধেছি। আপনাদের সবার দোয়া নিয়ে তার সঙ্গেই বাকিটা জীবন কাটিয়ে দিতে চাই।

রাজধানীর উত্তরার একটি স্থানীয় চাইনিজ রেস্টুরেন্ট সাংবাদিকদের উদ্দেশে এমন কথাই বললেন মাহি। নববধূ সাজে তাকে হাসিমুখে দেখে বোঝা যায় অপুকে পেয়ে তিনি প্রচন্ড খুশি। তার এই খুশি যেন সারাজীবন থাকে এটা উপস্থিত সব সাংবাদিকই কামনা করেন।

হানিমুন কবে করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে মাহি বলেন, আগামী ২৪শে জুলাই সিলেটে বৌভাত হবে। এরপর বাকি সব চিন্তা। এখন আসলে আমরা নিজেদের একটু গোছাতে চাই। সবার দোয়া চাই যেন নতুন জীবন ভালো কাটে।

বিয়ের সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ। লাল শাড়ি পড়ে শ্বশুর বাড়িতে আসছেন দেশের জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি।
 
বুধবার রাতেই রাজধানীর উত্তরার বাসা থেকে স্বামী মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে শ্বশুর বাড়ি সিলেটের কদমতলীর উদ্দেশ্য রওনা করেন তিনি।
 
এরআগে দুপুরে মাহির বাসায় শুরু হয় বিয়ের মূল আনুষ্ঠানিকতা। সেখানে কনে মাহি ও বর অপুর স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।
রাতে রাজধানীর উত্তরার একটি কমিউনিটি সেন্টারে মাহি-অপুর দুই পরিবারের আত্মীয় এবং সাংবাদিকদের নিয়ে বিবাহোত্তর সংবর্ধনার আয়োজনে উপস্থিত স্বামীসহ।

আর সেখানেই লাল শাড়িতে নিজেকে জড়িয়ে মাথায় টিকলি, নাকে নোলক, হাতে চুড়ি পরে উপস্থিত হন। সাংবাদিকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন তাঁর জীবন সঙ্গীর সাথে।  

বরের নাম পারভেজ মাহমুদ অপু যুক্তরাজ্য থেকে কম্পিউটার প্রকৌশল নিয়ে পড়ালেখা করে এসেছেন। বর্তমানে সিলেট শহরে নিজেদের পারিবারিক ব্যবসা দেখছেন। দুই পরিবারের সম্মতিক্রমে পারিবারিকভাবেই এই বিয়ের আয়োজন হয়েছে।
 
গত চার বছর ধরে মাহি ও অপু একে অপরের সংগে পরিচিত। তবে তাদের বিয়ে হয়েছে উভয় পরিবারের সম্মতিতেই। এর আগে গত ১২ মে খুব গোপনে মাহি ও অপুর বাগদান সম্পন্ন হয়।
 
নিজের বিয়ে প্রসঙ্গে মাহিয়া মাহি বলেন, `আমি চলচ্চিত্রকে ভালোবাসি, পাশাপাশি সংসার জীবনটাও নিজের মতো উপভোগ করতে চাই। তাই সবার কাছে দোয়া চাই যেন আমরা সুখে থাকতে পারি, ভালো থাকি।`
 
মাহি আরও জানান, আগামী ২৪ জুলাই সিলেটে ওয়ালিমা  (বৌ-ভাত) সম্পন্ন হবে। বিয়ের পর মাহি জানিয়েছেন, তিনি তার স্বামী আবাসস্থল সিলেটের কদমতলীতে থাকবেন।

বিয়ের পর চলচ্চিত্রে অভিনয় করা ছেড়ে দিবেন কিনা- এমন প্রশ্নে  তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্র আমার ভালোবাসা, ভালোলাগার জায়গা। যেহেতু বিয়ের পরা সিলেটেই থাকব আমি, তাই বছরে দু-একটি চলচ্চিত্রে কাজ করবো। এর বেশি না। কারণ আমি আমার বর্তমান জীবনটাকে এখন প্রাধান্য দিতে চাচ্ছি।’

মাহিকে স্ত্রী হিসেবে পেয়ে অনুভূতি কেমন? জানতে চাইলে পারভেজ মাহমুদ অপু বলেন, ‘এটা একেবারেই পারিবারিক বিয়ে। নতুন জীবনে প্রবেশ করার অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা যায় না।’
 
২০১২ সালে শাহীন সুমন পরিচালিত `ভালোবাসার রং` চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে মাহিয়া মাহির অভিষেক ঘটে। এ মুহূর্তে দীপংকর দীপনের `ঢাকা এ্যাটাক` ছবিতে অভিনয় করছেন তিনি।

আরও পড়ুন
বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত