ঢাকা, ২৪ নভেম্বর, ২০২০
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
রাসূল (সা.) কে ব্যঙ্গ করে ফ্রান্স মুসলমানদের কলিজায় আগুন লাগিয়েছে সেনাপ্রধানকে প্রধানমন্ত্রীর ‘সেনাবাহিনী পদক’ প্রদান প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ: দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আমরা দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ সিলেট নগরীর পাঠানটুলায় বাসা থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার, তরুণী আটক

বিচার না হওয়া পর্যন্ত সিলেটবাসী রায়হানের পরিবারের পাশে থাকবে-আরিফ

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ২৬ অক্টোবর ২০২০  

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর আশ্বাসে অনশন ভাঙেন বন্দর পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে মারা যাওয়া যুবক রায়হান আহমদের মা সালমা বেগম ।
রবিবার সকাল ১১ টা থেকে চলমান অনশন বিকেল সাড়ের ৪টার দিকে হঠাৎ রূপ নেয় তীব্র আন্দোলনে। 

রায়হানের পরিবারের সদস্যরা এবং আখালিয়া এলাকার বাসিন্দারা ব্ন্দরবাজার রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে শুরু করেন। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনস্থলে ছুটে আসেন সিলেট সিটি করপোরেশেনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

বিকেল পৌনে ৫টার দিকে অসুস্থ রায়হানের মায়ের অনশন ভাঙান সিলেট সিটি মেয়র।রায়হানের মাকে সান্তনা দিয়ে জুস পান করিয়ে অনশন ভাঙান মেয়র আরিফ। পরে বিক্ষোভকারীদের শান্ত করে অবরোধ তুলে দেন।

এ সময় মেয়র রায়হানের মাকে আশ্বস্ত করে বলেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত দোষীদের গ্রেপ্তার ও বিচার না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত সিলেটবাসী এই আন্দোলনে রায়হানের পরিবারের পাশে থাকবে।’

মেয়র আরিফ বলেন, ‘রায়হান হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত এসআই আকবর ও অন্যান্য আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের জন্য আমরা পররাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তকর্তাদের সঙ্গে কথা বলব।’ এ সময় উপস্থিত ছিলেন ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তৌফিক বক্স লিপন, কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কমরান প্রমুখ।

এর আগে বেলা ১১টা থেকে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির সামনে রায়হানের মা সালমা বেগমসহ আখালিয়া এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা এবং রায়হানের পরিবারের কয়েকজন সদস্য অনশন কর্মসূচি শুরু করেন।

রায়হানের মা উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার বুকের ধন একমাত্র ছেলেকে কেড়ে নিয়েছে এই ফাঁড়ির সাবেক ইনচার্জ এসআই আকবর ও তার সহযোগীরা। বর্বরোচিতভাবে নির্যাতন করে আমার ছেলেকে হত্যা করেছেন তারা। আমি এ হত্যাকারীদের বিচার চাই। আর না হয়, আমার ছেলেকে মেরেছে, আমাকেও গুলি করে মারা হোক।’

সালমা বেগম বলেন, ‘আমার ছেলেকে এ ফাঁড়িতে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার আজ ১৫ দিন অতিবাহিত হলেও এসআই আকবরকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। এ ছাড়া পুলিশ হেফাজতে থাকা আকবরের সহযোগীদেরও গ্রেপ্তার দেখানো হচ্ছে না।’

রায়হানের মা বলেন, ‘আমার ছেলের হত্যাকারী এসআই আকবরকে না ধরা পর্যন্ত আমি এখানেই অবস্থান করব। এ কর্মসূচি কোনো দলীয় কর্মসূচি নয়। তাই দলমত নির্বিশেষে সবাইকে অংশ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

অনশনে অংশ নেয়া ব্যক্তিদের হাতে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের গ্রেপ্তারের দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড ছিল। 
 

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত