ঢাকা, ২৬ আগস্ট, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ব্রেকিং নিউজ--বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

বাসর রাতেই শুরু ঝগড়া:৪ দিনের মাথায় স্বামীকে খুন করে নববধূ

প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০১৫   আপডেট: ১৩ নভেম্বর ২০১৫

সিলেটে বিয়ের মাত্র চার দিনের মাথায় তুচ্ছ ঘটনাকে কন্দ্রে করে শয়ন কক্ষে স্বামীকে হত্যা করল নববধূ। বাসর রাতেই স্বামী রাসেলের সাথে বিরোধের শুরু হয় রোশন বেগমের।

ঝগড়া হতো নিয়মিতই। এমনকি হাতাহাতিও হয়েছে কয়েক দফা। শেষমেষ বিয়ের চার দিনের মাথায় স্বামীকে হত্যাই করেন রোশন বেগম। গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যার পর নিজেই লাশ টেনে হিঁচড়ে গলিতে ফেলে দেয়।

আদালতে এমনই স্বীকারোক্তি দিলেন রোশন বেগম।তারপর লাশ ফেলে রাখা হয় বাসার সামনের রাস্তায়। বুধবার রাতে সিলেট মহানগর মুখ্য হাকিম প্রথম আদালতে ঘণ্টাব্যাপী জবানবন্দিতে স্বামীকে হত্যার বর্ণনা দেন নববধূ রুশন বেগম।

আদালতের বিচারক শাহেদুল করিম ১৬৪ ধারার তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। রুশন আদালতে দেয়া জবাবন্দিতে জানায়, গত সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে খাবার শেষে স্বামী রাসেল আহমদের সঙ্গে কথা কাটাকাটির জের ধরে ঝগড়া হয় তার। এর জের ধরে রাত সাড়ে ১২টায় নিজের ওড়না স্বামীর গলায় পেঁছিয়ে অচেতন করে তাকে হত্যা করা হয়। পরে শয়ন কক্ষে স্বামীর মরদেহ রেখে তিনি অন্যকক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন।

ফজরের নামাজের পর নিজেই স্বামীর মরদেহ টেনেহেঁচড়ে বাসার সামনের রাস্তায় ফেলে আসেন। এরপর সকালে বাসার মালিকের মামা আবুল হোসেন রাস্তায় মরদেহ দেখে চিৎকার দিলে বাসার সবাই বিষয়টি জানতে পারে।

স্থানীয়রা কোতোয়ালি থানায় খবর দিলে পুলিশ রাসেল আহমদের মরদেহ উদ্ধার করে। এসময় সন্দেহভাজন হিসেবে স্ত্রীকে আটক করে পুলিশ। নিহত রাসেল আহমদ (৩২) সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার রশিদপুরের আব্দুল খালিকের ছেলে। তিনি নগরীর নরশিংটিলা ১২৯ নং বাসায় স্ত্রীসহ ভাড়া থাকেন।

গতশুক্রবার সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মন্ডলপুর গ্রামের মোস্তফা মিয়ার মেয়ে রুশন বেগমকে (১৯) বিয়ে করেন রাসেল আহমদ। রুশন বাগবাড়ি এলাকায় তার ফুফুর বাসায় (নরশিংটিলা নং-৩১৬) থাকত। হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের ভাই সেলিম বাদী হয়ে রুশনকে একমাত্র আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন

আরও পড়ুন
মুক্তিযুদ্ধ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত