ঢাকা, ২৫ জুন, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে ইইউ প্রতিনিধিদলের উদ্বেগ পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ জারদারি গ্রেফতার ৪০ লাখ ঘুষ: দুদক পরিচালক এনামুল বাসির সাময়িক বরখাস্ত ওসি মোয়াজ্জেমকে খুঁজেই পাচ্ছে না পুলিশ!

নগরীতে ছাত্রলীগ-স্বেচ্ছাসেবকলীগের সংঘর্য: দোকান ভাঙচুর বিএনপির

বিশেষ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৩ এপ্রিল ২০১৯  

সিলেট নগরীর জেল রোডে সংঘর্য হয়েছে  ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে। আর এর জের ধরে জিন্দাবাজার পয়েন্টে ভাঙচুর করা হয়েছে  বিএনপি নেতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে।

জানা যায়, নগরীর জেল রোড এলাকায় ছাত্রলীগের একটি মিছিল থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাদের উপর হামলা চালানো হয়। এতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের তিন নেতা আহত হন। 

এর প্রতিবাদে স্বেচ্ছাসেবক লীগের একটি  মিছিল জিন্দাবাজার পয়েন্টে এসে মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমের পারিবারিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে (তারু মিয়ার দোকান) হামলা চালিয়ে ভাঙচুর চালায়। এসময় জিন্দাবাজার পয়েন্টে কয়েকটি মোটরসাইকেল ও জল্লারপাড়ে একটি প্রাইভেটকার ভাঙচুর করে তারা।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফতাব হোসেন খানের অনুসারী বলে জানা গেছে। ছাত্রলীগের ওই মিছিল থেকে মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা বিধান কুমার সাহার নামে স্লোগান দেওয়া হচ্ছিলো। হামলাকারীরা ছাত্রলীগের কাশ্মীর গ্রুপের অনুসারী বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

আহতরা হলেন- স্বেচ্ছাসেবক লীগ কামরুল আই রাসেল গ্রুপের কর্মী আসগর ও লিটন। তাদেরকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ।

জানা গেছে, নগরীর জেলরোড এলাকায় হোটেল ডালাসের পাশে কামরুল আই রাসেলের নেতৃত্বে আফতাব গ্রুপের স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকর্মীরা বসতেন। সম্প্রতি তাদের ওই জায়গায় বসতে বাধা দেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি পীযুষ কান্তি দে। বাধা না মানায় শুক্রবার রাতে এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের দপ্তর সম্পাদক কামরুল আই রাসেল বলেন, ‘আমরা নেতাকর্মীদের নিয়ে জেলরোড এলাকায় ছিলাম। এমন সময় আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা হয়। এতে আমাদের তিন কর্মী আহত হয়েছেন। এদের একজনের নাম গোলজার আহমদ। আহতদের ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হামলার পর কাশ্মীর গ্রুপের নেতাকর্মীরা সশস্ত্র মিছিল সহকারে জিন্দাবাজার পয়েন্টে এসে দুটি মোটর সাইকেলে হামলা চালায়। এরপর জিন্দাবাজার পয়েন্টে অবস্থিত বদরুজ্জামান সেলিমের পারিবারিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তারু মিয়ার দোকানে ভাঙচুর করে। হামলায় দোকানের মালামাল ও অন্যান্য আসবাবপত্র ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।
এরপর মিছিলটি জল্লারপার হয়ে দাড়িয়াপাড়ায় প্রবেশের সময় রাস্তায় দাঁড় করিয়ে রাখা একটি প্রাইভেট কারও (নং ঢাকা মেট্টো-চ, ১২-০২ ২৯) ভাংচুর করা হয়।

এ ব্যাপারে কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ সেলিম মিয়া বলেন, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুজন আহত হয়েছেন। তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া একটি পক্ষ জিন্দাবাজারে একটি দোকান ও গাড়ি ভাঙচুর করেছে।

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত