ঢাকা, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২
SylhetNews24.com
শিরোনাম:

গ্রাম হবে শহর, কল ঘুরালে পানি আসবে: পরিকল্পনামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২২  

উপকূলের জীবন-জীবিকা সুরক্ষা ও উন্নয়নে জাতীয় বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে ‘ফেইথ ইন অ্যাকশন’ আয়োজিত সেমিনারে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, গ্রাম হবে শহর। শহরে যেমন কল ঘুরালে পানি আসে, তেমনি গ্রামেও কল ঘুরালে পানি আসবে।

রোববার (৫জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরম খাঁ হলে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলে অনেকগুলো প্রতিষ্ঠান একসঙ্গে কাজ করার কারণে সমন্বয়হীনতা তৈরি হয়েছে। এর ফলে আড়ালে অনেক অপচয় হয়েছে। তবে, উপকূলীয় অঞ্চলে সুপেয় পানির জন্য আমরা সারা বর্ষায় বৃষ্টির পানি ধরে রেখে, সারা শীতকাল পান করার প্রকল্প নিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীও এ নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

উপকূলীয় এলাকার জন্য বিশেষ বোর্ড গঠনের দাবির প্রেক্ষিতে মন্ত্রী বলেন, আমরা নতুন বোর্ড বা এ জাতীয় সংগঠন করতে আগ্রহী নই। এতে আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় কোনো বিশেষ কাজ হয় না।

উপকূলীয় অঞ্চলে স্যানিটেশনের ব্যাপারে মন্ত্রী বলেন, স্যানিটেশন ব্যবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে। ধীরে ধীরে আরও হবে।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. আক্তারুজ্জামান বাবু। তিনি বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলে ৩৪০ কিলোমিটারের মধ্যে ১২০ কিলোমিটার এলাকা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ। অনতিবিলম্বে এই এলাকার বাঁধ ব্যবস্থার উন্নয়ন দরকার। এছাড়াও দরকার বেশি বেশি আধুনিক সাইক্লোন সেন্টার। আপৎকালীন সময়ে সামান্য বরাদ্দ না দিয়ে দুর্যোগের পূর্বেই ব্যবস্থা নিলে সেটি কাজে আসবে।

সুন্দরবন ও উপকূল সুরক্ষা আন্দোলনের সমন্বয়ক নিখিল চন্দ্র ভদ্রের সঞ্চালনায় সেমিনারে মূল বক্তব্য তুলে ধরেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল। তিনি উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের জন্য বিশেষ বরাদ্দের পাশাপাশি একটি বোর্ড, দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় এলাকাকে দুর্যোগ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা ঘোষণা, সুপেয় পানির ব্যবস্থা, টেকসই বেড়িবাঁধ, সুন্দরবন রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ, জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ক্ষতিপূরণসহ নানান দাবি তুলে ধরেন।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা রুবিনা আক্তার ও অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, একাত্তর টেলিভিশনের উপ-প্রধান বার্তা সম্পাদক পলাশ আহসান, নৌ-সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে, ফেইথ ইন অ্যাকশনের নির্বাহী পরিচালকের নৃপেন বৈদ্য, কোস্ট ফাউন্ডেশনের মোস্তফা কামাল আকন্দ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক সাকিলা পারভীন এবং বিভিন্ন সংগঠনের পরিবেশ ও উন্নয়নকর্মীরা।

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত