ঢাকা, ২০ মার্চ, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ফলোআপ: অভাবের যাতনা ও ক্ষোভে বীর মুক্তিযোদ্ধা জলফে আলীর আত্বহত্যা! রাঙ্গামাটিতে ভোট শেষে ফেরার পথে গুলি:নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮ জন জিয়া ভোটের রাজনীতি ধ্বংস করেছেন: প্রধানমন্ত্রী নৌকা আর বিদ্রোহী মিলে সিলেট জেলার ১২ উপজেলাই আ`লীগের নিউজিল্যান্ডেই দাফন সিলেটের হোসনে আরা ও ড. সামাদের মসজিদে হামলাকারীকে আটকানো পাকিস্তানি ‘নায়কের’ মৃত্যু সুনামগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে মুক্তিযোদ্ধার রহস্যজনক মৃত্যু খাদ্যমন্ত্রীর জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু, পরিবারের দাবি ‘হত্যা’ ফের ডাকসু পুনর্নির্বাচনের দাবি জানালেন ভিপি নুর বিশ্বব্যাপী প্রশংসায় ভাসছেন সেই কিশোর, আরও ডিম কেনার তহবিল গঠন

খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে নেওয়া হবে, প্রস্তুতি শুরু 

প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০১৯  

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোড এলাকার কারাগার থেকে কেরানীগঞ্জের রাজেন্দ্রপুর এলাকায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হবে।

তবে কবে তাকে পাঠানো হবে সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত জানা যায়নি। জানা গেছে, ইতিমধ্যে কারাকর্তৃপক্ষ সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছে।

কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের পূর্ব-দক্ষিণ পাশে প্রায় ৩০০ নারী বন্দীর জন্য কারা কর্তৃপক্ষ একটি কম্পাউন্ড তৈরি করেছে। সেখানে দুটি চারতলা ভবন আর একটি একতলা ভবন রয়েছে। কারাগারের ভেতরে প্রায় শতভাগ কাজ শেষ হয়েছে। এখন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কাজ চলছে। একতলা ভবনটি কারাগারের প্রধান ফটক দিয়ে ঢুকে পশ্চিম ও দক্ষিণ পাশে। সেখানে ডিভিশনপ্রাপ্ত ভিভিআইপি বন্দীদের রাখা হবে।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম বলেন, ‘পুরান ঢাকার কারাগারটি নিয়ে সরকারের ব্যাপক কর্ম পরিকল্পনা রয়েছে। শুনেছি নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে স্থানান্তরের চিন্তা ভাবনা করা হচ্ছে। তবে কবে কখন খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে স্থানান্তর করা হবে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে শীর্ষ পর্যায়ে আলাপ-আলোচনা চলছে।’

প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডাদেশ দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। এরপর খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত