ঢাকা, ২৬ মে, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ব্রেকিং নিউজ---শ্রীলংকায় ৮টি পৃথক বোমা হামলায় নিহত বেড়ে ২০৭,কারফিউ জারি ‘সরকার বেকায়দায় নেই যে খালেদাকে প্যারোলে মুক্তি দিতে হবে’ আওয়ামী লীগ সরকারের জনপ্রিয়তা বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী সুনামগঞ্জে যুবক খুনের নেপথ্যে নৌ-পথে চাঁদাবাজি, গ্রেপ্তার ৮ নুসরাত হত্যা: আ’লীগ নেতা রুহুল আমিন আটক সিলেটের ওসমানীনগরে বিধবাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামাশ্বশুর গ্রেফতার

কয়লাখনি মামলা:খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের শুনানি ৯ এপ্রিল

প্রকাশিত: ১৩ মার্চ ২০১৯  

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠনের ওপর শুনানির দিন পিছিয়েছে।

বুধবার ওই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানির নির্ধারিত দিনে খালেদা জিয়ার আইনজীবী শুনানি পেছানোর আবেদন করেন।

আবেদনের শুনানি শেষে বকশী বাজারে অবস্থিত ঢাকার ২ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক এ এইচ এম রুহুল ইমরান চার্জ গঠনের পরবর্তী শুনানির জন্য ৯ এপ্রিল দিন ধার্য করেন।

এদিন বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হয়নি। কারাকর্তৃপক্ষ আদালতকে বলেছে, বন্দি আদালতে হাজির হতে অনিচ্ছুক।

আদালতে খালেদার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন দুদকের আইনজীবী মোশারফ হোসেন কাজল।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, এই মামলায় অভিযুক্ত আসামিদের সংখ্যা ১৩ জন। মামলায় অভিযুক্ত আসামিদের মধ্যে জামায়াত নেতা সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মুহম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। এ ছাড়া বিএনপি নেতা এম কে আনোয়ার মারা গেছেন। বর্তমানে মামলার আসামি দাড়িয়েছে ১০ জনে।

২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

পরে ওই বছরের ৫ অক্টোবর পুলিশ তদন্ত করে ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। এ মামলা দায়েরের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন খালেদা জিয়া। ২০০৮ সালের ১৬ অক্টোবর হাইকোর্ট বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন।

চীনা প্রতিষ্ঠান কনসোর্টিয়াম অব চায়না ন্যাশনাল মেশিনারিজ ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট করপোরেশনের (সিএমসি) সঙ্গে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির উৎপাদন,ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম ও চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের প্রায় ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ক্ষতি ও আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে এ মামলায়।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত