ঢাকা, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
২৫ জনকে আসামি করে আবরার হত্যার চার্জশিট:অভিযুক্তরা উচ্ছৃঙ্খল ছিল

‘ওস্তাদ স্পিড বাড়ান, সামনে স্টুডেন্ট’

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০ মার্চ ২০১৯  

সু-প্রভাত পরিবহনের বাস চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহম্মেদ চৌধুরী নিহতের ঘটনায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো আবার রাস্তায় নেমেছেন শিক্ষার্থীরা। 

মঙ্গলবার সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। বিক্ষোভের পাশাপাশি প্লেকার্ডে লেখা বিভিন্ন স্লোগানও দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। এসব বুদ্ধিদীপ্ত স্লোগান নজর কেড়েছে গণমাধ্যমকর্মী ও পথচারীদের। 

অনেকের মুখে শোনা যায় ‌‘ওস্তাদ স্পিড বাড়ান, সামনে স্টুডেন্ট’ স্লোগান। এই স্লোগান লেখা প্লেকার্ডও নিয়ে এসেছেন কয়েকজন। ঢাকার রাস্তায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের বেশিরভাগই যে ছাত্রছাত্রী সে কথা স্মরণ দিতে এই স্লোগান বলে জানান এক বিক্ষোভকারী। 

শিক্ষার্থীদের দেওয়া আরও স্লোগানগুলো হচ্ছে- ‘জাস্টিস ফর আবরার’, ‘আমার ভাইয়ের রক্ত বৃথা যেতে দেব না’, ‘আর কত রক্ত ঝরতে হবে রাস্তায়’, ‘সাদা জেব্রা ক্রসিং লালে লজ্জা কার’। এরকম নানা স্লোগানে সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছেন তারা। 

সকাল সাড়ে ৯টা থেকে রাজধানীর প্রগতি সরণির সামনে অবস্থান নিতে শুরু করেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বসুন্ধরা আবাসিক গেইটে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। 

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন শিক্ষার্থীরা। ‘আমার ভাই কবরে, খুনি কেন বাহিরে’, ‘জবাব চাই’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে মিরপুর রোডে ধানমন্ডি ২৭ থেকে ৩২ নম্বর পর্যন্ত পূর্ব পাশের সড়কে অবস্থান নিয়েছেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। তারাও বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন। এ সড়কেও যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

উত্তরার হাউস বিল্ডিং এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে আন্দোলন করছেন উত্তরা ইউনিভার্সিটিসহ কয়েকটি স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। ফলে ব্যস্ততম এই সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

এ ছাড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ পুরান ঢাকার বিভিন্ন স্কুলকলেজের শিক্ষার্থীদের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ কর্মসূচি চলছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে নর্দ্দা এলাকার প্রগতি সরণির যমুনা ফিউচার পার্কের সামনের রাস্তা পার হওয়ার সময় সড়ক দুর্ঘটনায় পড়েন আবরার। রাস্তার উল্টো পাশে ছিল আবরারের বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস। জেব্রা ক্রসিং পার হয়ে সেই বাসের কাছে যাচ্ছিলেন তিনি। ঠিক তখন ওই রাস্তায় দুটি বাসের প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়ে সুপ্রভাত পরিবহনের একটির ধাক্কায় ছিটকে পড়েন আবরার। এরপর সেই বাসটি তাকে চাপা দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য অনুযায়ী, তার নিথর দেহ টেনেও নিয়ে যায় খানিকটা। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আবরারের।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত