ঢাকা, ১৫ অক্টোবর, ২০২১
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
দক্ষিণ সুরমায় কিশোরকে অপহরণকালে আটক ১৬ জনকে পুলিশে সোপর্দ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় `টারজান` স্ত্রীসহ নিহত মন্ত্রিসভার বৈঠকে স্থানীয় প্রশাসনকে লকডাউনের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রতারণা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বোনের বিরুদ্ধে দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর দেশে এলো ফাইজারের ১ লাখ ৬০০ ডোজ টিকা

ওসমানীনগরে স্কুল শিক্ষিকাকে গলা কেটে হত্যা করে গৃহকর্মীর আত্বহত্য

বিশেষ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২১  

সিলেটের গোয়াইনঘাটের বিন্নাকান্দি গ্রামে ত্রিপল মার্ডারের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার মর্মান্তিক হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে জেলার ওসমানীনগরে। 

উপজেলার দয়ামীর ইউনিয়নের সোয়াইরগাও গ্রামে নিজ ঘর থেকে স্কুল শিক্ষিকার গলাকাটা এবং গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

শনিবার (১৯ জুন) রাত ১২টার দিকে ওসমানীনগর থানা পুলিশ স্কুল শিক্ষকা তপতী রানী দে (৫০) এবং গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ বৈদ্যের মরদেহ উদ্ধার করে। বাসার বাথরুমের জানালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ধারনা করছে স্কুল শিক্ষিকাকে কুপিয়ে গলা কেটে হত্যার পর গৃহকর্মি আত্বহত্যা করেছে। গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ ৪/৫ বছর ধরে ওই বাসায় গৃহকর্মির কাজ করছিল। বছর খানের থেকে খাওয়া দাওয়া, কাজ কর্ম, পোষাক নিয়ে তার ক্ষোভ ছিল বলে নিহত শিক্ষিকার ছেলে বিপ্লব পুলিশ সুপারকে জানিয়েছেন।

রবিবার (২০ জুন) সকালে ওসমানীনগর থানা পুলিশ স্কুল শিক্ষিকা ও বাড়ির কাজের ছেলে গৌরাঙ্গের লাশ সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। রোববার দুপুর পর্যন্ত মামলাও হয়নি। তবে পুলিশ বলছে, মামলার প্রস্তুতি চলছে। ওই ঘর থেকে আলামত হিসেবে রক্তমাখা একটি দা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

তপতী রানী দে সোয়াইরগাও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। তার স্বামী বিজয় দে পেশায় চিকিৎসক। তাদের দুই ছেলেমেয়েও চিকিৎসক।

সিলেটের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন, আমরা ধারণা করছি শিক্ষিকাকে বটি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে নিজে গলায় গামছা পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে ওই গৃহকর্মী। খবর পেয়ে মধ্যরাতেই সিলেটের পুলিশ সুপার মো. ফরিদ উদ্দিন ঘটনাস্হলে ছুটে যান।

তিনি বলেন, তপতী রানী যে বাড়িতে থাকতেন সেই বাড়ির নিরাপত্তা ব্যাবস্থা খুবই শক্ত। ভেতর থেকে সকল দরজা ও ফটক তালা দেওয়াই ছিলো।ফলে বাইরে থেকে কেউ ভেতরে প্রবেশের কোনো আলামত পাইনি। ক্ষোভের বশে গৌরাঙ্গই তপতী রানীকে হত্যা করতে পারে। আপাতত এই ধারণা থেকেই তদন্ত এগোচ্ছি। তবে তদন্ত শেষে বিস্তারিত বলা যাবে।

একই ধরণের ধারণার কথা জানিয়েছেন তপতী রানীর চিকিৎসক ছেলে বিপ্লব দেও। ছেলে ও স্বামীর সাথে সোয়াইরগাওয়ের ওই বাড়িতে থাকতেন তপতী। বিপ্লব বলেন, গৌরাঙ্গ অনেকদিন ধরেই আমাদের বাসায় মায়ের কাজের সহযোগি হিসেবে আছেন। কিছুদিন ধরেই সে খিটখিটে মেজাজে অস্বাভাবিক আচরণ করতো।তুচ্ছ বিষয়েই ঝগড়া জুড়ে দিতো।

স্থানীয়রা জানান, কর্মক্ষেত্র থেকে ছেলে রাতে বাড়ি ফিরে ডাকাডাকি করলেও ভেতর থেকে কোন সাড়া পাননি। পরে বাথরুমের জানালা দিয়ে গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ বৈদ্যের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান প্রতিবেশীরা। এ সময় ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। পরে থানায় খবর দেন তারা।

পরে রাত ১২টার দিকে ওসমানী নগর থানার উপপরিদর্শক নাজমুল হুদা বাসার বাথরুমের জানালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে মেঝেতে তপতী রানী দের গলাকাটা মরদেহ ও পাশে গৌরাঙ্গ বৈদ্যর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার সময় তপতী রানীর স্বামী ও ছেলে চেম্বারে রোগী দেখছিলেন। এ সময় বাসায় কেবল তপতি ও গৌরাঙ্গ ছিলেন। সন্ধ্যার পর কোনো একসময়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওসমানীনগর থানার ওসি শ্যামল বণিক বলেন, হত্যাকান্ডে যে বটি দা ব্যবহার করা হয়েছে সেটা উদ্ধার করেছে পুলিশ। শিক্ষিকার পুরো গলাটা দা দিয়ে কাটা হয়েছে। মাথাটা গাড়ের চামড়ার সাথে একটু ঝুলানো অবস্থা ছিলো। বাড়ির কাজের ছেলে গৌরাঙ্গ একাই এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে পুলিশ নিশ্চিত। যার কারণে সে নিজেই বসত ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

আরও পড়ুন
এক্সক্লুসিভ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত