ঢাকা, ২২ মে, ২০১৯
SylhetNews24.com
শিরোনাম:
ব্রেকিং নিউজ---শ্রীলংকায় ৮টি পৃথক বোমা হামলায় নিহত বেড়ে ২০৭,কারফিউ জারি ‘সরকার বেকায়দায় নেই যে খালেদাকে প্যারোলে মুক্তি দিতে হবে’ আওয়ামী লীগ সরকারের জনপ্রিয়তা বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী সুনামগঞ্জে যুবক খুনের নেপথ্যে নৌ-পথে চাঁদাবাজি, গ্রেপ্তার ৮ নুসরাত হত্যা: আ’লীগ নেতা রুহুল আমিন আটক সিলেটের ওসমানীনগরে বিধবাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামাশ্বশুর গ্রেফতার

আ.লীগে যোগদান নিষিদ্ধ ঘোষণা!

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২ মে ২০১৯  

আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির অনুমোদন ছাড়া কোন পর্যায়েই আওয়ামী লীগে যোগদান অবৈধ বিবেচিত হবে। ইতিমধ্যে যারা স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছেন, তারা আওয়ামী লীগের সদস্য হবেন যদি কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী সংসদ অনুমোদন দেয়।

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেছেন, ‘ইতিমধ্যে ইউনিয়ন বা উপজেলা পর্যায়ে অন্যদল থেকে যারা আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছে, আমরা তাদের যোগদান মূল্যায়ন করবো। তারা যদি কোন অপরাধ, সন্ত্রাস বা জঙ্গীবাদের সঙ্গে জড়িত থাকে, সেক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় কমিটি তার যোগদান অনুমোদন দেবে না। ঐ ব্যক্তি এখন আওয়ামী লীগের সদস্য থাকবেন না।’

হানিফ আরো বলেন,‘ নতুন করে আওয়ামী লীগে যোগদানের আগে ঐ অঞ্চলের সাংগঠনিক সম্পাদকের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। সাংগঠনিক সম্পাদক যোগদানে ইচ্ছুকদের তথ্য দলের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদককে জানাবেন। এটা যদি কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটি অনুমতি দেয় সেক্ষেত্রেই তার যোগদানের অনুষ্ঠানিকতা করা হবে।’

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বলেন,‘ দেশের বিভিন্ন স্থানে স্থানীয় পর্যায়ে এরকম যোগদানের ঘটনা ঘটছে। এর সঙ্গে স্থানীয় স্বার্থ জড়িত। অনেক সময় আমরা জানিও না, কে যোগ দিলো কিভাবে যোগ দিলো। একটা ঘটনা ঘটার পর আমরা জানতে পারি। তখন বদনাম হয় আওয়ামী লীগের।’

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বগুড়ার গোহাইল ইউনিয়নে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদানকারী এক ইউপি চেয়ারম্যানের হাতে লাঞ্ছিত হন প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা।

২০১৬ সালে স্থানীয় বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আতোয়ার তালুকদার ফজু আওয়ামী লীগে যোগ দেন। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে অন্ধকারে রেখে স্থানীয় এমপি এবং শাজাহানপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এই যোগদানের ঘটনা ঘটান।

বুধবার আলী আতোয়ার স্থানীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউসুফ আলীকে মারধর করেন। আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে এই খবর এসেছে। এতে আওয়ামী লীগের তৃণমূলের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। বগুড়া অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে এ ব্যাপারে তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের একজন শীর্ষ নেতা বলেন, বগুড়ার ঘটনাটি গণমাধ্যমে আসায় আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু সারাদেশে এরকম ঘটনা প্রতিদিনই ঘটছে। এরকম পরিস্থিতিতে কোনঠাসা হয়ে পড়ছে আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের ত্যাগী এবং পরীক্ষিতরা।

জানা গেছে, সারাদেশে এরকম ঘটনার বিচার চেয়ে সহস্রাধিক অভিযোগ এসেছে কেন্দ্রীয় দপ্তরে।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, এই অভিযোগগুলো তদন্ত হবে, যারা দায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিএনপি-জামাত থেকে যারা ২০০৯ সাল থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছে তাদের তালিকাও চূড়ান্ত করা হয়েছে। এই তালিকায় যাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ প্রমাণিত হবে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সভাপতি বাইরে থেকে লোক নেওয়া আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন
জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত