21 Sep 2018
Loading
 

প্রচ্ছদ

জাতীয়

বাণিজ্য

খেলাধুলা

তথ্যপ্রযুক্তি

শিক্ষা

বিনোদন

সাহিত্য-সংস্কৃতি

ঐতিহ্য

পর্যটন

প্রবাসের সংবাদ এক্সক্লুসিভ সংগঠন সংবাদ মুক্তিযুদ্ধ আর্কইভস
শিরোনাম:
Bread Crumbs

2011-03-31 19:35:02

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চরম লোকবল সংকট
১০০ শয্যার হাসপাতালে ডাক্তার আছেন একজন

সিলেট অফিস

সিলেটনিউজ২৪.কম

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ডাক্তার, নার্স ও লোকবল সংকট চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। ১০০ শয্যার হাসপতালটিতে আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার বাদে ডাক্তার রয়েছেন মাত্র একজন। বিগত দুইমাস যাবত এই অবস্থা চলছে। ফলে জেলা সদরের একমাত্র হাসপাতালটিতে স্বাস্থ্যসেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন।

সুনামগঞ্জ থেকে মাসুম হেলাল জানান, ১০০ শয্যাবিশিষ্ট সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালটিকে কাগজে-কলমে ২৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। কিন্তু সে তুলনায় কোন সময়ই এখানে পর্যাপ্ত ডাক্তার, নার্স ও লোকবল দেয়া হয়নি। বর্তমানে অবস্থা একেবারে শোচনীয় আকার ধারণ করেছে। হাসপাতালটিতে ২৮ জন ডাক্তারের মঞ্জুরীকৃত পদের বিপরীত মাত্র একজন ডাক্তার ও একজন আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার(আরএমও) মিলে জোড়াতালি দিয়ে রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ৪টি ইমার্জেন্সি মেডিক্যাল অফিসার ও ১২টি মেডিক্যাল অফিসারের সবগুলো পদই শূন্য। ১২জন সহকারি রেজিস্টারের মধ্যে কর্মরত আছেন মাত্র একজন। ৬৪জন নার্সের স্থলে আছেন ২৪ জন। হেলথ ইডুকেটরের দুইটি পদই শূন্য রয়েছে। ১২ জন টেকনোলজিস্ট পদের বিপরীতে ৩ জন কর্মরত আছেন। ১০ জন সিনিয়র কনসালটেন্ট পদের সবগুলোই শূন্য। ১১ জন জুনিয়র কনসালটেন্ট’র মধ্যে ৩ জন কর্মরত আছেন। ২টি  এনেস্থেশিয়া পদই শূন্য রয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, দুইদিন আগে ভর্তি হওয়া অনেক জটিল রোগীর চিকিৎসা চলছে নার্সদের দ্বারা। নার্স সংকটের কারণেও একজন নার্সকে পাশাপাশি দু’টি ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। একজন ফার্মাসিস্ট ও দুইজন সহকারী মিলে চালাচ্ছেন জরুরি বিভাগ। আউটডোরে আসা রোগীদের ব্যবস্থাপত্র দিচ্ছেন মেডিক্যাল এ্যাসিস্টেন্টরা। অপারেশন থিয়েটারে সবধনের যন্ত্রপাতি থাকার পরও এনেস্থেশিয়ানের অভাবে অপাশেন করা যাচ্ছে না। দীর্ঘদিন ব্যবহার না করায় লক্ষ লক্ষ টাকার অপারেশনে সরঞ্জামাদি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। মেডিসনি কনসালটেন্ট না থাকায় মেশিন থাকার পরও রোগীদের ইসিজি করা সম্ভব হচ্ছে না। সুইপার ও ওয়ার্ড বয় কম থাকায় হাসপাতালের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বিষয়টিও কাক্ষিত মানে রাখা সম্ভব হচ্ছে না।

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মধুপুর গ্রামের ইদ্রিছ আলী তাঁর শিশুপুত্র পারভেজ(৮) কে রোববার দুপুরে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করিয়েছেন। তার পেটে প্রচণ্ড ব্যাথা। আলাপকালে ইদ্রিছ আলী জানান, ‘কাইল দুইফরিবালা ভর্তি করাইছি এখনও ডাক্তারের দেখা ফাইছি না। সিস্টারনি আইয়া দেখছইন। বাইর থাইক্কা ওষুধ আইনা খাওয়াইরাম।’

এ সময় শিশু ও ডাইরিয়া ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকা নার্স আকালিমা খাতুন জানান, ‘ডাক্তার না থাকলেও রোগীদের তো আর ফেরত দেয়া যাচ্ছে না। সম্পূর্ণ ঝুঁকির মধ্যে থেকে সিস্টার হয়েও রোগীদের বাঁচাতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত দিতে হচ্ছে।’

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. মহসিনুল করিম জানান, ‘ডাক্তার, নার্স ও লোকবল সংকটের কারণে হাসপতালে আসা রোগীদের পর্যাপ্ত সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। ডাক্তারের স্থলে মেডিক্যাল এ্যাসিস্টেট ও নার্সদের দিয়ে কোনমতে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হয়েছে।’

সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. এটিএম রাকিব চৌধুরী জানান, ‘সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে যে ক’জন ডাক্তার কর্মরত ছিলেন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে একজন একজন করে বদলী করে নেয়া হয়েছে। জরুরিভিত্তিতে লোকবল না দিলে স্বাস্থ্যসেবা অব্যাহত রাখা মুশকিল হয়ে পড়বে।’

Advertisement

জাতীয়-এর সর্বশেষ খবর

প্রচ্ছদ জাতীয় বাণিজ্য খেলাধুলা তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা বিনোদন সাহিত্য-সংস্কৃতি ঐতিহ্য পর্যটন প্রবাসের সংবাদ এক্সক্লুসিভ সংগঠন সংবাদ মুক্তিযুদ্ধ আর্কইভস
Editor: Khaled Ahmed, SylhetNews24.com SNC Limited. Shah Forid Road. 30/3, Jalalabad R/A. Sylhet-3100. Bangladesh. Cell: +88 01711156789, +88 01611156789,
e-mail: [email protected], [email protected] Executive Editor: Mohammad Serajul Islam. cell:+88 01712 325665
All right ® reserved by SylhetNews24.com    Developed by eMythMakers.com & Incitaa e-Zone Ltd.