19 Dec 2018
Loading
 

প্রচ্ছদ

জাতীয়

বাণিজ্য

খেলাধুলা

তথ্যপ্রযুক্তি

শিক্ষা

বিনোদন

সাহিত্য-সংস্কৃতি

ঐতিহ্য

পর্যটন

প্রবাসের সংবাদ এক্সক্লুসিভ সংগঠন সংবাদ মুক্তিযুদ্ধ আর্কইভস
শিরোনাম:
Bread Crumbs

2018-02-20 18:30:27

‘খালেদা স্বীকারোক্তি দিয়েছেন বলাটা অ্যাবসলিউট রাবিশ`: আপিলের আইনগত যুক্তি

সিলেটনিউজ২৪.কম

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দেয়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায়কে সাংঘর্ষিক উল্লেখ করে আইনজীবী ও দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, রায়টা কন্ট্রাডিক্টরি।

কোনো প্রমাণ ছাড়া বিচারক বেগম জিয়াকে  সাজা দিয়েছেন। প্রত্যক্ষ কোনো অভিযোগ নেই। পরোক্ষও কোনো অভিযোগ নেই।

সাক্ষীরা উনার সম্পর্কে কিছুই বলে নাই। কিছু জাল কাগজপত্র তৈরি করে তারা এ মামলাটি দাঁড় করিয়েছে।

এজন্য প্রথম দিন থেকেই মামলাটি হওয়ার কথা নয়। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে করা হয়েছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

‘খালেদা ক্ষমতার অপব্যবহার করার স্বীকারোক্তি দিয়েছেন’ বলে রায়ে উল্লিখিত একটি বাক্য নিয়ে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘অ্যাবসলিউট রাবিশ। মিথ্যা কথা একদম। একেবারে মিথ্যা কথা। দুটা কারণ বলি: আমাদের কাছে তো অরিজিনাল ৩৪২ স্টেটমেন্ট আছে। এবং এই ৩৪২ স্টেটমেন্টটা রেকর্ডেও আছে। এনিবডি ক্যান গো অ্যান্ড ফাইন্ড আউট।

ওখানে ছিল প্রশ্নবোধক চিহ্ন। সেই প্রশ্নবোধক চিহ্নটা তুলে দিয়ে ওখানে দাঁড়ি দিয়ে দিয়েছে। অথচ, অরিজিনালি ওই প্রশ্নবোধক চিহ্নটা আছে।

বাক্যটা অনেকটা এমন ছিল: আমি কি দুর্নীতি করেছি? বলে দিলো হ্যাঁ আমি দুর্নীতি করেছি। কনফেশন হয়ে গেল। ছেলেমানুষির একটা সীমা থাকা দরকার। উনি যদি গিল্টিই হন তাহলে এত লম্বা-চওড়া করার কী দরকার ছিল।

যেদিন উনাকে জিজ্ঞেস করা হলো চার্জ ফ্রেম করার সময়, আপনি দোষী না নির্দোষ; উনি বলে দিলেই পারতেন যে উনি দোষী। ইট ইজ অ্যান অ্যাবসার্ড প্রোপোজিশন।

উইল এনি সেনসিবল পারসন হু ইজ অ্যাকিউজড অব এনি অফেন্স উইল স্ট্যান্ড আপ অ্যান্ড সে যে আমি এটা করেছি? করলে তো কনফেশনাল স্টেটমেন্ট হবে। বিচার হয়ে যাবে। অন্যরকম হবে। মিডিয়ায় অনেকেই এটা না বুঝে করেছে, তাদের কোনো দোষ নেই।

তবে, বিচারক; বলতে বাধ্য হচ্ছি-তারা যদি বেগম জিয়ার মতো মানুষের ব্যাপারে এরকম অস্বচ্ছতা এবং এরকম ম্যালাফাইড করতে পারে- এটার চেয়ে দুঃখজনক আর কিছু হতে পারে না। আমরা কার ওপরে বিশ্বাস রাখব এখন?

আপনি চিন্তা করে দেখেন না- আপনি একজন অ্যাকিউজড। আপনি ৩৪২ স্টেটমেন্ট করেছেন ৪০-৫০ পাতা। আপনি অনেক কিছু বলেছেন সেখানে। সেখানে আপনি কি এসে বলবেন যে, আমি ক্ষমতার অপব্যবহার করেছি? এটা কোনো পাগল বলবে? অথচ এটাকে হাইলাইট করা হয়েছে। ফোকাস করে বলা হয়েছে, উনি তো নিজে অ্যাডমিট করে গেছেন। সুতরাং আর ট্রায়ালের কি দরকার ছিল? বাংলাদেশে এখন সবকিছুই সম্ভবপর।

 

আপিলের আইনগত যুক্তি
আপিলের যুক্তিতে বলা হয়েছে, খালেদা জিয়া তিনবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। একটি রাজনৈতিক দলের প্রধান। তিনি নির্দোষ। তাকে রাজনৈতিকভাবে হয়রানি এবং ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতেই এ ধরনের বানোয়াট মামলা করা হয়েছে। বিষয়টি বিচারিক আদালত বিবেচনায় না নিয়ে ভুল করেছে। মামলার ৩২ নম্বর সাক্ষী প্রথম তদন্তকারী কর্মকর্তা খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাননি মর্মে প্রথমে প্রতিবেদন দিয়েছিলেন।

কিন্তু দ্বিতীয় তদন্তকারী কর্মকর্তা অসত্ উদ্দেশ্যে এই মামলায় খালেদা জিয়াকে সম্পৃক্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। এছাড়া ট্রাস্টের কোনো অভ্যন্তরীণ কর্মকাণ্ডে যদি অনিয়ম হয় তাহলে প্রতিকারের জন্য সুনির্দিষ্ট আইন রয়েছে। কিন্তু এজন্য কোনোভাবেই দুদক আইনে মামলা হতে পারে না। যুক্তিতে আরো বলা হয়েছে, ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৪২ ধারায় খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনমূলক বক্তব্য ভুলভাবে উদ্ধৃত করে রায় দেওয়া হয়েছে বলে আপিলে উল্লেখ করেছেন আইনজীবীরা।

এতে বলা হয়েছে, জবানবন্দিতে খালেদা জিয়া বলেছিলেন, ......“অন্যায়ের প্রতিবাদ করলে নির্বিচারে গুলি করে প্রতিবাদী মানুষদের হত্যা করা হচ্ছে। ছাত্র ও শিক্ষকদের এক নাগারে হত্যা করা হচ্ছে। এগুলো কি ক্ষমতার অপব্যবহার নয়? ক্ষমতার অপব্যবহার আমি করেছি?

আপিলে বলা হয়েছে, খালেদা জিয়ার এই বক্তব্যকে বিকৃত করে রায়ে সাজা দেওয়ার ক্ষেত্রে এটাকে গ্রহণ করা হয়েছে। অর্থাত্ ক্ষমতার অপব্যবহার আমি করেছি?-এক্ষেত্রে প্রশ্নবোধক চিহ্ন ছিল। কিন্তু সেটা বিবেচনা না করে বিচারক তা বিচারিক মনন সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারেননি। এ কারণে সাজার রায় বাতিল করে খালেদা জিয়াকে খালাস দেওয়া হোক।

Advertisement

জাতীয়-এর সর্বশেষ খবর

প্রচ্ছদ জাতীয় বাণিজ্য খেলাধুলা তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা বিনোদন সাহিত্য-সংস্কৃতি ঐতিহ্য পর্যটন প্রবাসের সংবাদ এক্সক্লুসিভ সংগঠন সংবাদ মুক্তিযুদ্ধ আর্কইভস
Editor: Khaled Ahmed, SylhetNews24.com SNC Limited. Shah Forid Road. 30/3, Jalalabad R/A. Sylhet-3100. Bangladesh. Cell: +88 01711156789, +88 01611156789,
e-mail: [email protected], [email protected] Executive Editor: Mohammad Serajul Islam. cell:+88 01712 325665
All right ® reserved by SylhetNews24.com    Developed by eMythMakers.com & Incitaa e-Zone Ltd.